Connect with us

ক্রিপ্টোকারেন্সি সংবাদ

দৈনিক যুগান্তরের ৯৪ লাখ টাকার বিটকয়েন

Published

on

বিটকয়েন অনেক ভোলাটাইল। প্রতিনিয়ত এর দাম পরিবর্তন হয় ব্যাপক হারে এবং এই পরিবর্তনের মাত্রার কোন নির্দিষ্টতা নেই। আমি বিটকয়েনের দাম একদিনে ৫০%+ কমতেও দেখেছি এবং তারও অনেক বেশি কমার কথা শুনেছি। যখন এমটিগক্স হ্যাক হয়েছিল তখন বিটকয়েনের দাম কমেছিল অনেক। এই তথ্য গুলো সবই ইন্টারনেটে রয়েছে এবং সবসময় থাকবে। যে কেউ চাইলেই এই তথ্যগুলো দেখতে পারে।
সম্প্রতি কেন্দ্রীয় ব্যাংকের শীর্ষ কর্মকর্তাদের এই বৈঠকে বলা হয়, বাংলাদেশ ব্যাংক কোন ক্রিপ্টোকারেন্সি ইস্যু করবে না এবং অন্যান্য ক্রিপ্টোকারেন্সির ব্যবহারেও তাদের সিদ্ধান্ত আগের মতই রয়েছে।
দৈনিক যুগান্তর এই বৈঠক নিয়ে একটি প্রতিবেদন করেছেন

সচরাচর বাংলাদেশের মিডিয়াগুলোকে বিটকয়েন কিংবা অন্যান্য ক্রিপ্টোকারেন্সি নিয়ে প্রতিবেদন করতে খুব একটা দেখা যায় না এবং করলেও সেটা থাকে ভুল তথ্যে পরিপূর্ণ। এছাড়াও সবসময় একটা ব্যাপার লক্ষনীয় যে মিডিয়াগুলো জেনে কিংবা না জেনেই সবসময়ই বিটকয়েনকে মানুষের কাছে নেগেটিভ ভাবে প্রেজেন্ট করে থাকেন। যেমন- গত কিছুদিন আগে গাজীপুরে একটা হ্যাকার বা হ্যাকারের সাথে জড়িত ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়। উক্ত ব্যক্তি মানুষের ক্রেডিট কার্ড এর তথ্য চুরি করে সেটা দিয়ে বিটকয়েন ক্রয় করত। এখানে যদিও উক্ত ব্যক্তির প্রথম ক্রিমিনাল কার্যক্রম হল ক্রেডিট কার্ড এর তথ্য চুরি এবং সেটা ব্যবহার করা, দেশের মিডিয়াগুলো খুব ফলাও করে বিটকয়েনকেই খুব বাজে ভাবে প্রেজেন্ট করেছিল।
সে যাই হোক, মুল কথায় ফিরে আসি। যুগান্তরের উক্ত প্রতিবেদনে তারা লিখেছে বিটকয়েনের দাম ২০০৯ সালে ছিল ১ ডলার যা সম্পুর্ণ ভুল। ২০১০ সালের ২২শে মে সর্বপ্রথম বিটকয়েন দিয়ে কোন (প্রকাশ্যে) লেনদেন হয়। সে লেনদেন এক ব্যক্তি ২ টা পিজা ক্রয় করেছিল ১০০০০ বিটকয়েন দিয়ে৷ আর পিজা দুটির দাম ছিল আনুমানিক ৪৫ ডলার। তাহলে প্রতি বিটকয়েন এর দাম কত হয়? ০.০০৪৫ ডলার।


আবার, তার পরেই লিখেছে সম্প্রতি বিটকয়েন এর দাম উঠেছিল প্রায় ৯৪ লক্ষ টাকা এবং বর্তমানে সেটা কমে প্রায় ৪৭ লাখ টাকায় অবস্থান করছে। কখন ৯৪ লাখ টাকা দাম উঠেছিল? এইটা সম্ভবত টাইপিং মিসটেক। তবুও, যুগান্তর এর মত একটা দৈনিক সংবাদপত্রের এইরকম ভুল কি সাজে?
আমার এইটা লেখার উদ্দেশ্য যুগান্তর কিংবা মিডিয়াকে ছোট করা নয়, যদিও ছোট করেছি। বাংলাদেশে ক্রিপ্টোকারেন্সি বৈধ হতে কেন অনেক সময় লাগবে। কিংবা কেন এখনো বৈধ হচ্ছে না? সেটা হল অজ্ঞতা। সংবাদপত্রগুলো কোনরকম গবেষণা না করেই প্রতিবেদন তৈরী করছে, আর সবসময় তাদের দৃষ্টিভঙ্গি হল বিটকয়েন কালো জগতের টাকা। যতদিন না এই দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন হচ্ছে, ততদিন দেশ পরিবর্তন সম্ভব নয়।

সোর্সঃ যুগান্তর
Continue Reading
Click to comment

মতামত দিন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Trending

Copyright © 2021. All rights reserved.