Connect with us

অল্টাকয়েন

ডজকয়েন (DOGE)- নতুনদের জন্য গাইডলাইন

Published

on

সম্প্রতি ডজকয়েন (DOGE) দাম আকাশচুম্বী হয়েছে। গতবছর এই কয়েনের দাম ছিল $০.০০৩ বা তার কাছাকাছি কিংবা ২০২১ সালের জানুয়ারীর কথাও যদি বলি, প্রতি ডজের মুল্য ছিল $০.০০৯ বা তার কাছাকাছি। যেটা গত কয়েকদিন আগে সর্বোচ্চ প্রায় $০.৭০ হয়েছিল যা জানুয়ারী মাস থেকে ৭০ গুণ এর বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে। এইরকম ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পাওয়ার পিছনে মুল কারণ হল ইলন মাস্ক সম্প্রতি ডজ কয়েন নিয়ে অনেক টুইট করেছেন এবং কিছুদিন আগে তিনি ডজ কয়েন ক্রয় করেছেন বলে জানান। তারপর থেকে এর দাম বেড়েই চলেছে যার কারণে অনেক নতুন বিনিয়োগকারী এই কয়েনের দিকে বিনিয়োগ করার চিন্তা ভাবনা করছেন। বেশিরভাগ বিনিয়োগকারী এখন একদমই নতুন, যার জন্য তারা জানে না কিভাবে ডজকয়েন ক্রয় করতে হবে, কোথায় নিরাপদভাবে সেগুলো সংরক্ষণ করতে হবে। সেই দিকগুলো বিবেচনা করেই আজকের এই আর্টিকেল লেখা। আশা করছি নতুনদের জন্য এইটা সহায়ক হবে।

ডজকয়েন কি?

ডজকয়েন একটি ক্রিপ্টোকারেন্সি যা বিটকয়েন থেকে অনেক দ্রুততর লেনদেন হয় এবং ডজকয়েনে লেনদেন এ ফি অনেক কম। তবে এর সরবরাহ বিটকয়েনের মত নির্দিষ্ট নয়। প্রতি মিনিটে ডজকয়েনের সরবরাহ ১০০০০ ডজ করে বেড়ে চলেছে। ২০১৩ সালে, অনেকটা মজার ছলে বিলি মার্কাস এবং জ্যাকসন পাল্মার এই কয়েন সৃষ্টি করেন। ডজকয়েনের লগো শিবা ইনু কুকুরটির মিম হওয়াতে অনেক জনপ্রিয়তা পায় কারন শিবা ইনুর এই মুখয়বটি ইন্টারনেটে অনেক জনপ্রিয় ছিল। একপ্রকার মজার চলে সৃষ্টি করা এই কয়েন বর্তমানে ৮০ বিলিয়ন মার্কেটক্যাপ নিয়ে ক্রিপ্টোকারেন্সি মার্কেটক্যাপ র‍্যাংকিং এ ৪র্থ অবস্থানে আছে।

কিভাবে ডজকয়েন ক্রয় করবেন?

বাংলাদেশ এখনো তেমন কোন লোকাল মার্কেট বা এক্সচেঞ্জ সাইট নেই। যেগুলো আছে ওইগুলো বিটকয়েন এবং অন্য কিছু স্টাবলকয়েনই লেনদেন করে থাকে। খুবই স্বল্প সংখ্যক এক্সচেঞ্জ সাইট কেবল কিছু অল্টাকয়েন লেনদেন করে থাকে, তবে সে কয়েনগুলোর মধ্যে নেই ডজকয়েন। আর যদি থেকেও থাকে, তাদের কাছে ডলার মুল্য আকাশচুম্বী। বর্তমানে বিটিসি প্রতি ডলার ৮৮-৯০ টাকায় লেনদেন হলেও, তাদের কাছে সেটা ক্রয় করতে গেলে ৯৫টাকা বা তার থেকেও বেশি দামে ক্রয় করা লাগে। সুতরাং, এই চেষ্টা করা অনেকটাই লস। তাহলে কিভাবে ক্রয় করা যায় ডজকয়েন?
বাইন্যান্স কিংবা কুকয়েন এ গিয়ে আপনার একাউন্ট খুলে নিন। তারপর প্রয়জনীয় তথ্য দিয়ে আপনার একাউন্ট ভেরিফাই করে নিন। এই দুইতা এক্সচেঞ্জেই পিটুপি লেনদেন এর ব্যবস্থা রয়েছে যা অনেক বেশি নিরাপদ। এই পিটুপি সিস্টেম ব্যবহার করে আপনি যে কোন স্টাবল কয়েন কিংবা বিটিসি ক্রয় করে নিন। সেখানে বেশিরভাগ সময়ই ডলার রেট থাকে ৮৮-৯০ টাকা বা তার কম। তারপর খুব সহজেই আপনি ক্রয় করে নিতে পারেন ডজকয়েন, দুইটা এক্সচেঞ্জেই ডজকয়েন ক্রয় করার সুবিধা রয়েছে।

ডজকয়েন কোথায় সংরক্ষণ করবেন?

যদি আপনার চিন্তা ভাবনা হয় আপনি দীর্ঘ সময়ের জন্য এই কয়েনে বিনিয়োগ করছেন, তাহলে অবশ্যই আপনাকে চিন্তা করতে হবে কোন ওয়ালেটে বা কোথায় এই কয়েন রাখা যায় যেন কয়েন হারাবার কিংবা হ্যাক হওয়ার ভয় না থাকে। সেজন্য, আমি প্রথমেই বলব যে কোন সেন্ট্রালাইজড ওয়ালেটে রাখার চিন্তা একদম মাথা থেকে ফেলে দিন। যেমন, বাইন্যান্সে রাখা। এইটা একটা এক্সচেঞ্জ এবং এইখানে দীর্ঘ সময়ের জন্য কয়েন রাখা মোটেও নিরাপদ নয়। আপনাকে কয়েন সংরক্ষণ করতে হবে ডিসেন্ট্রালাইজড ওয়ালেটে।
সবার প্রথমেই আমি সাজেস্ট করব হার্ডওয়্যার ওয়ালেট। যেমন- লেজার, ট্রেজর, সেফপাল। এইগুলো হার্ডওয়্যার ওয়ালেট এবং হ্যাক হওয়ার সুযোগ খুবই কম যদি আপনি ঠিকমত ব্যবহার করতে জানেন। তবে, এই ওয়ালেট গুলো ক্রয় করতে হয়, বাংলাদেশে না থাকার কারনে দেখা যায় ইম্পোর্ট করতেও অনেক অসুবিধা হয়ে থাকে।
তবে, চাইলে এর বিকল্প হিসেবে পেপার ওয়ালেট ব্যবহার করতে পারেন তবে অবশ্যই মাথায় রাখবেন পেপার ওয়ালেট জেনারেট করতে হবে অফলাইনে।
সহজ সমাধান হল ডজকয়েন এর কোর ওয়ালেট ব্যবহার করা। যাদের কাছে কম্পিউটার আছে, তারা ডজকয়েন কোর ওয়ালেট ব্যবহার করতে পারেন। আর যাদের এনড্রয়েড ফোন, তারা অফিসিয়াল এনড্রয়েড ওয়ালেট ব্যবহার করতে পারেন।

ডজকয়েনে এখন বিনিয়োগ করা যায় কি?

এইটা আমার একান্ত ব্যক্তিগত মতামত। অবশ্যই কোন ফিন্যান্সিয়াল উপদেশ নয়।
ডজকয়েন এর দাম শুধুমাত্র এই বছরের জানুয়ারী থেকেই বেড়েছে ৭০ গুণ। যদিও অনেকেই বলছে ডজকয়েন ১ ডলার হবে, এর সম্ভাবনা খুবই কম। কারণ ডজের সাপ্লাই অনেক বেশি, এইটার সাপ্লাই অসীম। ইলন মাস্ক যদি শিলিং না করতো, আমরা হয়ত $০.০৫ ও দাম দেখতাম না। সে যাই হোক, এখন অল্টাসিজন। হয়ত বা সাময়িকভাবে আরো দাম বাড়তে পারে কিন্তু কেউ যদি দীর্ঘ সময়ের জন্য এখন ডজকয়েনে বিনিয়োগ করার চিন্তা করেন, তাহলে আম বলবো ভুল সিদ্ধান্ত। অল্টাসিজন এখন শেষ হওয়ার পথে। যদি অল্টাসিজন শেষ হয় তাহলে ডজকয়েন সহ সব কয়েনের দাম অনেক বেশি কমতে থাকবে। শর্ট টাইমের জন্য বিনিয়োগ করে কিছু প্রফিট নেয়া যেতে পারে তবে, এখন ডজকয়েনে পজিশন নেয়া খুবই রিস্কি। এইটা একান্তই আমার ব্যক্তিগত মতামত, আমার ধারনা ভুল হতেই পারে।

Continue Reading
Click to comment

মতামত দিন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Trending

Copyright © 2021. All rights reserved.